মূল বইঃ শাইখ মুকবিল বিন হাদী আল ওয়াদি’ইয়ি
অনুবাদঃ আবু হাযম মুহাম্মাদ সাকিব চৌধুরী বিন শামস আদ দীন আশ শাতকানী।

প্রশ্নঃ একজন জ্ঞানের শিক্ষার্থিনী যিনি মাসজিদ হতে শিক্ষা গ্রহণ করেন, যদি তিনি বাড়ি ফেরত যান, তার উপর এটি দায়িত্ব যে তিনি যা শিখেছেন তা পুনঃপাঠ করবেন। আর এর জন্যে অনেক সময়ের প্রয়োজন। কিন্তু তিনি জানেন তার বাড়ীর ব্যস্ততা তার জন্যে অপেক্ষা করছে। সুতরাং তার দায়িত্ব তার মাকে সাহায্য করা, আর বাড়ীর কাজ তার সব সময় দখল করে নেয়। আর জ্ঞানের শিক্ষার জন্যে অনেক খালি সময় প্রয়োজন। সুতরাং যদি তিনি ঘরে শিক্ষা গ্রহণ করেন, তবে খুব বেশী জ্ঞানার্জন করতে পারেন না। কিভাবে তিনি এ পরিস্থিতির এবং জ্ঞানের জন্যে খালি সময় রাখাবার বিষয়টির সাথে সম্পর্ক টানবেন?

শাইখ মুকবিল বিন হাদী আল ওয়াদি’ইয়িঃ যদি উনার পক্ষে সম্ভব দুনিয়ার কাজ বাদ দেওয়া, তবে তিনি তা করতে পারেন। আমি উনাকে এই পরামর্শ দিই। আর যদি তিনি তা না পারেন, তখন তার উপর এ দায়িত্ব যে সে তার সময়ের সঠিক বিন্যাস করবে। আর সময়ের সবচাইতে বড় অংশ জ্ঞান চর্চার জন্যে রাখবেন, আর কিয়দাংশ দুনিয়ার কাজের জন্যে রাখবেন। আর কেউ কল্যাণকর জ্ঞান অর্জন করতে পারে না এ ব্যতীত যে দুনিয়ার গুরুত্ব জ্ঞানের পরে হবে। আর যদি জ্ঞান  দুনিয়ার পরে হয়, তবে না (অর্থাৎ এ কাজ অসম্ভব), আর আল্লাহই আমাদের সাহায্যকারী।